-7.2 C
New York
Thursday, March 4, 2021
Home সারাদেশ চট্টগ্রাম বিভাগ সিটি কর্পোরেশনের আসবাব গেল ‍‍`ছয় মাসের রাজার‍‍` বাসায়

সিটি কর্পোরেশনের আসবাব গেল ‍‍`ছয় মাসের রাজার‍‍` বাসায়

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের টাকায় কেনা আসবাবপত্র সদ্য বিদায়ী প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন নিজের বাসায় নিয়ে গেলেন।

এমন কাণ্ড দেখে সেখানকার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যেও চলছে গুঞ্জন ও সমালোচনার ঝড়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশল বিভাগের প্রকিউরমেন্ট কর্মকর্তা প্রকৌশলী সালমা বলেন, ‘গত ৫ সেপ্টেম্বর প্রশাসক স্যারের দপ্তরের জন্য ফার্নিচার কেনার একটি আদেশ পাস হয়। পরে ওই ফার্নিচার স্টোরের হিসাবে লিপিবদ্ধ না করে ওনার বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রশাসক স্যার দপ্তরের নামে কেনা ফার্নিচারের ওই টাকা পরিশোধ করবেন। ডকুমেন্ট পাঠালে দিয়ে দেবেন।’

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের হিসাব শাখার অতিরিক্ত প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির চৌধুরী বলেন, ‘চসিকের জন্য কেনা ফার্নিচারের টাকা উনি দিয়ে দিবেন বলে আমিও জানি। তবে এখনও হিসাব শাখার কাগজ পাননি বলে ওই টাকাটা পরিশোধ করতে পারেননি।’

জানা গেছে, ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের এক প্রজ্ঞাপনে (শূন্য দুই পিএওএস/২০২০-২০২) মোতাবেক চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক দপ্তরের জন্য ফাইল কেবিনেট ও ইজি চেয়ার সরবরাহের কার্যাদেশ অনুমোদন দেন সেখানকার নির্বাহী প্রকৌশলী (ডি-২) কন্ট্রোলার অব স্টোর। এ কার্যাদেশ অফিস আদেশ হিসেবে পালনের জন্য সেখানে চারদিনের সময়ও বেঁধে দেওয়া হয়।

তবে ফাইল কেবিনেট ও ইজি চেয়ার কেনার পরিবর্তে সেখানে কেনা হয়েছে আর্মি চেয়ার। প্রতিটি চেয়ারের মূল্য পড়েছে ৭ হাজার ৬০০ টাকা করে। এ হিসেবে ৫টি আর্মি চেয়ারের মূল্য দাঁড়ায় ৩৮ হাজার টাকা। ৪ হাজার ৬২৫ টাকা করে মোট ৮টি টেবিল ও সাইড টেবিল কেনা হয়েছে ৩৭ হাজার টাকা ব্যয়ে। ১৭ হাজার ৬০০ টাকা দামের মাল্টিপারপাস শেলফ্ কেনার পাশাপাশি পরিবহন ভাড়াও লেগেছে ১৪০০ টাকা। সবমিলিয়ে মোট খরচ পড়েছে মোট দুই লাখ ২৮ হাজার টাকা।

অথচ ফাইল কেবিনেট ও ইজি চেয়ার কেনার জন্য ফকিরহাটের আল মদিনা এন্টারপ্রাইজ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তিও করে সিটি কর্পোরেশন। যেখানে ৪৬ হাজার টাকা অনুমোদন করা হয়েছিল। কিন্তু ফার্নিচার বদলে খরচ করা হল ২ লাখ ১৮ হাজার টাকা।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সদ্য সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজনকে মুঠোফোন কল করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি ১ ফেব্রুয়ারি চলে আসার সময় কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব থাকা কর্মকর্তাকে বলে এসেছি ফার্নিচারের টাকা আমার কাছ থেকে নিয়ে যাওয়ার জন্য। সেখানকার কেউ আসলে আমি টাকাটা দিয়ে দেবো’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

নাসিরে’র ৩২ প্রেমিকা’র ৩০ জন’ই অন্যে’র স্ত্রী

দেশের আলোচিত মডেল ও অভিনেত্রী মারিয়া মিম। স্বামী অভিনেতা সিদ্দিকের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর একাধিক ইস্যুতে গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছেন তিনি। এবার আলোচিত ক্রিকেটার নাসির ইস্যুতে আলোচনায়...

আত্ম’হত্যা ক’রবেন হিরো আলম

হিরো আলমের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক নার্স। তিনি হিরো আলমের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুপ্রস্তাব ও অশালীন কথাবার্তার বলার অভিযোগ করেছেন। গত শনিবার রাতে...

ঘরে’র কাজে’র জন্য টাকা দিতে হবে স্ত্রীকে

ঘরোয়া কাজের জন্য স্ত্রীকে টাকা পরিশোধ করার নির্দেশ দিয়েছেন চীনের একটি আদালত। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাজধানী বেইজিংয়ের একটি ডিভোর্স আদালত স্বামীকে টাকা পরিশোধের বিষয়ে...

মধ্য’রাতে ৪০ টা ঘুমে’র ওষুধ খেয়ে বসে ছিল ব্রিজে’র ওপর

'তোমাকে পেলে হয়ত আমি বেঁচেই যেতাম!' বা 'পাওয়া না পাওয়ার এই দুনিয়ায় তোমাকে পেলে হয়ত সব পাওয়া হয়ে যেতো!' অথবা 'প্রেমিকার শরীর অন্য কেউ...

Recent Comments